WB Madhyamik, HS Exams Cancel Again:মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণার পরেও পরীক্ষা বাতিল? বিস্তারিত পড়ুন

মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে শুরু হলো নতুন জল্পনা। ৭২ ঘণ্টার মধ্যে রিপোর্ট পৌঁছোবে কমিটির হাতে।

madhyamik
(madhyamik shiksha parishad)


নিউজ-বাংলা ডেস্ক(News18 bangla) :-
বর্তমান সময় করোনা সংক্রমনের দ্বিতীয় ঢেউয়ের মধ্যে জড়িত রয়েছে ভারত। আর কারণে ভারতের সময় চলছে খুবই ক্ষীণ ভাবে। পিছিয়ে রয়েছে ভারতের অর্থনৈতিক রাজনৈতিক সামাজিক সকল দিক গুলি।যার দরুন ভারতের সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে নেতা মন্ত্রী সহ ভারতসরকার সকলকেই ভুগতে হচ্ছে। ফলে পিছিয়ে গিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অধীনস্থ শিক্ষাব্যবস্থা অন্যতম  মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা।সূত্রের খবর অনুযায়ী কিছু দিন আগে পশ্চিমবঙ্গ সরকার  সাংবাদিক বৈঠকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার সূচি ঘোষণা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু হঠাৎ কোনো কারণ বশত বাতিল করা হয়েছে সেই সাংবাদিক বৈঠক। অর্থাৎ, বুধবার মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার সূচি ঘোষণা হচ্ছে না বলে জানা যায়। শিক্ষা দফতর সুত্রে খবর, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে কি না তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করা হয়েছে(
madhyamik shiksha parishad)। সেই কমিটিকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে। চলতি বছরে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক মিলিয়ে প্রায় ২১ লক্ষ পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা দেওয়ার কথা রয়েছে। তাদের সঙ্গেই জড়িয়ে রয়েছেন লক্ষ লক্ষ অভিভাবকও।

প্রসঙ্গত, গণনা অনুযায়ী চলতি বছরে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক মিলিয়ে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ২১ লক্ষ। করোনা পরিস্থিতিতে এই ছাত্র-ছাত্রীদের পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব কি না, তা নিয়ে পর্যালোচনার জন্যই বিশেষজ্ঞ কমিটির গঠন করা হয়েছে। কমিটিতে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের প্রতিনিধি(madhyamik shiksha parishad), চিকিৎসক, মনোবিদ ও শিশু অধিকার কমিশনের বিশিষ্ট  প্রতিনিধিরা রয়েছেন।তাঁরাই সমস্ত দিক খতিয়ে দেখে সিদ্ধান্ত নেবেন, এই পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নেওয়া যাবে কি না? যদি না যায়, তা হলে কী ভাবে পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে? এরকম নানা প্রশ্ন উঠে আসছে । এবং ছাত্র-ছাত্রীরাও বিভিন্নভাবে ব্যতিব্যস্ত হয়ে পড়ছে। কারণ, এই মূল্যায়নের সঙ্গে ছাত্র-ছাত্রীদের ভবিষ্যৎ অতপ্রত ভাবে জড়িত। তাই এই বিষয়ে তাড়াহুড়ো করে কোনও সিদ্ধান্ত নিতে চাইছে না শিক্ষা দফতর।

কারণ পরীক্ষা একেবারেই না-হলে ছাত্র-ছাত্রীদের প্রত্যেকের মূল্যায়ন করে তার নিরিখে নম্বর দেওয়া হলে সেটি কোনভাবেই সঠিক সিদ্ধান্ত হবে না।কারণ গোটা বঙ্গে এবং গোটা ভারতের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম  এই সকল সকল ছাত্র-ছাত্রী। যাদের উপর টিকে থাকবে আগামী দিনে এটা পশ্চিমবঙ্গ সহ ভারতের ভবিষ্যৎ। ফলে এই দুটি পরীক্ষার গুরুত্ব অত্যাধিক।এবং পরবর্তীকালে চাকরি, উচ্চশিক্ষা সহ যেকোন  কিছুর এই পরীক্ষার মূল্যায়ন যথেষ্ট প্রভাব নির্ভর করে। ঘটনাচক্রে, ২০২০ সালে মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ করা গেলেও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ করা যায়নি করোনার প্রাদুর্ভাবের জন্য। তখন উচ্চ মাধ্যমিকের যে পরীক্ষাগুলি হয়েছিল, তাতে প্রাপ্ত সর্বোচ্চ নম্বরের ভিত্তিতে যে বিষয়গুলির পরীক্ষা নেওয়া যায়নি, তার একটা দিক বিচার করে খাসিদের প্রাপ্ত নম্বর দেওয়া হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, বেশ কয়েক দিন আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা ঘোষণা করেছিলেন, জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে। অগস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহে হবে মাধ্যমিক। করোনা পরিস্থিতির মধ্যে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য নিয়মে ঠিক করা হয়েছিল তাতে বেশ কয়েকটি পরিবর্তনও পাঠানো হয়েছে বলে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 2021 সালের নির্বাচন অনুযায়ী ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা মন্ত্রী ব্রাত্য বসু মঙ্গলবার তথা 31 শে মে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের(madhyamik shiksha parishad)সঙ্গে বৈঠক করেন। তার পর বুধবার সাংবাদিক বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বর্তমানে সেটিই বাতিল করা হয়েছে।

 এছাড়াও বিস্তারিত পড়ুন  Madhyamik Exam madhyamik shiksha parishad

Tag-#news18 bangla WB Madhyamik, #HS Exams Cancel Again #madhyamik shiksha parishad

Leave a Comment